বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:

দিনাজপুরের বিরামপুরে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রনালয়াধীন, মহিলা বিষয়ক অধীদপ্তর কর্তৃক বাস্তবাযনাধীন “কিশোর – কিশোরী ক্লাব স্থাপন” প্রকল্পের আওতায় আবৃত্তি শিক্ষক ও সঙ্গীত শিক্ষক নিয়োগ পরিক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
১৩ জানুয়ারী বুধবার সকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার পরিমল কুমারের সভাপতিত্বে তাঁর কার্য্যালয়ে আবৃত্তি ও সঙ্গীত বিষয়ে পরিক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। পরিক্ষায় উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রেবেকা সুলতানা,
বিরামপুর সুরাভাসের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক মামুনুর রশিদ সুলভ ও সঙ্গীত ব্যক্তিত্ব দিলরূবা পারভিন রেবা উপস্থিত থেকে পরিক্ষায় বিচারকের দায়ীক্ত পালন করেছেন। পরিক্ষায় সঙ্গীতে ৭ জন ও আবৃত্তিতে ১১ জন প্রতিযোগি প্রতিযোহিতায় অংশগ্রহন করেন। পরিক্ষা শেষে উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে বিচারক ও সকল প্রতিযোগিদের নিয়ে উপজেলার পৌরসভাসহ সাতটি ইউনিয়নে কিশোর- কিশোরী ক্লাব স্থাপন করে সঙ্গীত ও আবৃত্তির মাধ্যমে উৎসাহিত করার আহবান জানান। তিনি বলেন, সঙ্গীত ও আবৃত্তি আমাদের মাদক, সমাজ ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং মন্দকাজ থেকে এ দেশের প্রজন্ম কিশোর- কিশোরীদের বিরত রাখতে পারে।
বিকেলে আবৃত্তিতে চুড়ান্ত ফলাফলে ৭ জন উপজেলার জোলাগাড়ী মহল্লার সাহাবার আলীর মেয়ে মোছা. শিমু মনি, দৃর্গাপুর এলাকার নূরে আলমের ছেলে রবিউল আওয়াল, জোতবানী ইউনিয়নের শ্যাম নগর গ্রামের জলিলুর রহমানের মেয়ে মোছা. রাজিয়া সুলতানা, পৌর ইসলাম পাড়া মহল্লার আবু ছালাম সরদারের মেয়ে মোছা. ইলফাত আরা কাশফী, টাটকপুর এলাকার মো.লুৎফর রহমানের ছেলে মো. জাফর চৌধুরী হিমেল, পূর্ব জগন্নাথপুর মহল্লার মো.ফজলুর রহমান সরকারের ছেলে ফারুক মো. শামীম আকতার ও
বিনাইল ইউনিয়নের আয়ড়া গ্রামের মো. আজিজুল হকের মেয়ে সানোয়ারা ইয়াসমিন বিজয়ী হয়েছেন।

নির্বাচিত সঙ্গীত শিক্ষক পরীক্ষায় চুড়ান্ত ফলাফলে বিজয়ী ৬ জন হলেন, উপজেলার জোতবানী ইউনিয়নের আবু সাঈদ সরকারের ছেলে সরকার মো. আরেফিন বাদল, কাটলা ইউনিয়নের উত্তর দাউদপুর গ্রামের ফজর উদ্দিন সরকারের ছেলে মো.জালাল উদ্দীন রুমী, দেবিপুর এলাকার কহর উদাদিনের ছেলে মো.রুহুল আমিন, পূর্বজগন্নাথপুর মহল্লার সাহির হোসেনের মেয়ে মোছা. মনিরা খাতুন, বিকাশ চন্দ্রের স্ত্রী কেয়া রানী ও বুজুরুক বাইলশিরা গ্রামের মো. মতিযার রহমানের ছেলে মো. মোস্তাফিজুর রহমান।।